Skip links

এড কোয়ালিটি বুঝে বাজেট অপটিমাইজ করার কৌশলঃ

ফেসবুক মার্কেটিং এর ক্ষেত্রে বাংলাদেশের বেশীরভাগ উদ্যোক্তারাই শুধুমাত্র শর্টকার্ট বুষ্ট বা প্রমোটকে বুঝে থাকেন। আপনি যদি সাময়িকভাবে একটি পণ্যকে সেল করতে চান সেক্ষেত্রে একটি বুষ্ট যথেষ্ট হতে পারে কিন্তু প্রতিষ্ঠিত একটি ব্র্যান্ড হিসেবে আপনার কোম্পানীকে তৈরী করতে শুধুমাত্র বুষ্ট বা প্রমোট যথেষ্ট নয়, এর জন্য প্রয়োজন প্রোপার মার্কেটিং।

এছাড়াও বর্তমান ফেসবুক এড কোষ্টিং অত্যধিক আকারে বাড়ায় আগেরমতো বুষ্ট বা প্রমোটও সবসময় কাজ করছে না। এফেক্টিভ ওয়েতে মার্কেটিং করার জন্য সঠিক প্ল্যানিং, মার্কেটিং স্ট্যাটেজি এবং সেটির যথাযথ এক্সিকিউশন প্রয়োজন।

বাংলাদেশের সিংহভাগ মানুষই সঠিকভাবে মার্কেটিং সর্ম্পকে অবগত না থাকায় তারা ক্রমাগত বুষ্ট বা প্রমোট করেই এফ-কমার্স বিজনেস রান করছেন, এতে ক্রমাগত খারাপ রেজাল্টে হতাশ হওয়া ছাড়া আর কিছু করার থাকে না। এজন্য একটি প্রফেশনাল মার্কেটিং এজেন্সীর কনসাল্টেন্সির পাশাপাশি নিজেকেও বিষয়গুলোর দিকে নজর রাখতে হয়।

কিভাবে বুঝবেন আপনার এডে নতুনত্ব আনা প্রয়োজন?
আপনি যখন কোন পোস্ট বুষ্ট করছেন তখন ফেসবুক এড ম্যানেজার থেকে সেটির রেজাল্ট, অডিয়েন্স রিভিউ এবং কোয়ালিটি র‌্যাংকিংসহ বিষদ বিবরণী পাওয়া যায়। এর মধ্যে কোন এড যদি কোয়ালিটি র‌্যাংকিং এ Above Average বা Average না হয় তবে আপনার এড এসেট ও অডিয়েন্স নিয়ে নতুন করে ভাবা উচিৎ।

কোয়ালিটি র‌্যাংকিং মুলত কি?
আমরা সবাই জানি যখন কোন পোস্ট বুষ্ট করা হয় তা টার্গেট ডিটেইলস অনুযায়ী অন্যান অডিয়েন্সের কাছে পৌঁছায়। এই নিয়মে এতোদিন যাবৎ বুষ্ট করে আশানুরুপ রেজাল্ট পাওয়া গেলেও বর্তমানে ফেসবুক এলগরিদম পরিবর্তন হওয়ায় আশানুরুপ রেজাল্ট পেতে বেশ কিছু বিষয় নিশ্চিত করতে হয়।

এর মধ্যে সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ ভুমিকা পালন করে এড এ্যাসেট যেমন ছবি, কনটেন্ট। এছাড়াও একটি এড বুষ্ট করার পর সেটির অডিয়েন্স ফিডব্যাক এর উপর এড কোয়ালিটি নির্ভর করে। আপনার বুষ্ট করা এড যদি কোন অডিয়েন্স হাইড বা রিপোর্ট করে তবে নিশ্চিতভাবেই এটি এড কোয়ালিটিতে প্রভাব ফেলবে, ফলে এড কোষ্টিং বাড়বে।

কোয়ালিটি স্টেজঃ
মধ্যমানের চেয়ে বেশী (Above Average)
মধ্যমান (Average)
মধ্যমানের নীচে (কম্পিটিটরদের মধ্যে ৩৫%) (Below Average)
মধ্যমানের নীচে (কম্পিটিটরদের মধ্যে ২০%) (Below Average)
মধ্যমানের নীচে (কম্পিটিটরদের মধ্যে ১০%) (Below Average)

মধ্যমান ও মধ্যমানের চেয়ে বেশীঃ
আপনার বুষ্ট করা ক্যাম্পেইন যদি মধ্যমানের চেয়ে বেশী হয় তবে এটি সবচেয়ে ভালো পজিশনে রেজাল্ট ডেলিভার করবে। এড কোয়ালিটিতে মধ্যমান বা এর বেশী হলো একই ক্যাটাগরির অডিয়েন্সে অন্যান প্রতিযোগীদের মধ্যে আপনি সবচেযে এগিয়ে।

মধ্যমানের নীচেঃ
মধ্যমানের নীচের মধ্যে ৩টি স্টেজ রয়েছে। ৩৫% এর নীচে হলে আপনার এডটি একই অডিয়েন্স টার্গেটিং এ রান করা সকল এডসের মধ্যে ৩৫% নিম্নমানে আছে। একইভাবে ২০% আর সবচেয়ে নিম্নমান হলো ১০%।

ফেসবুক বুষ্টে উপরে বর্ণিত ৫টি ধাপ অনুসরণ করা হয়। এর মধ্যে আপনার এড যদি মধ্যমানের চেয়ে বেশী স্কোরে থাকে তবে এটি সবচেয়ে কম খরচে একটি ভালো রেজাল্ট ডেলিভার করবে। সাধারণত, মধ্যমের চেয়ে বেশী এবং মধ্যমানকে আমি স্ট্যান্ডার্ড ধরে থাকি। আপনার বুষ্ট করা ক্যাম্পেইন যদি এর নীচের স্টেজগুলোতে থাকে তবে এডে নতুনত্ব আনার ব্যাপারে মনোযোগ দেওয়া উচিৎ।

ফেসবুক বুষ্ট সংক্রান্ত যেকোন সমস্যায় কমেন্টে জানাতে পারেন, উত্তর দেওয়ার চেষ্টা করবাে। এছাড়াও আপনার পোস্টের কনটেন্ট কোয়ালিটি, পেইজ কোয়ালিটি যাচাই করতে লিংকটি ইনবক্স করুন। আমি আপনার পোস্ট বা পেইজ রিভিউ করে করণীয় জানিয়ে দিব।

Leave a comment